Sun. Nov 17th, 2019

Educational Tips

চাকরি পরিক্ষার কোচিং – সম্পূর্ণ বাংলায়।

Medieval India-Sultanate-Khalji-Tughlaq-dynasty

1 min read
medieval-india-sultanate-khalji-tughlaq-dynasty

medieval-india-sultanate-khalji-tughlaq-dynasty

ভারতের ইতিহাস-মধ্যযুগ

সুলতানী- খলজী- তুঘলক- বংশ 

ইতিহাসকে ভাল করে জানতে হলে ইতিহাসের কালপঞ্জী সম্পর্কে সম্যক ধারনা থাকা দরকার। সংক্ষিপ্ত আকারে কালপঞ্জী তুলে ধরা হলো। নিখুঁতভাবে সঠিক সময়পঞ্জী বের করা সম্ভব নয়। বিভিন্ন দুষ্প্রাপ্য পুঁথি, শিলালিপি, ঐতিহাসিক গ্রন্থ থেকে যেটুকু জানা যায় তার উপর ভিত্তি করে একটা আনুমানিক সময় পঞ্জী দেওয়া হলো। ঐতিহাসিক ভেদে এই সময়পঞ্জী ভিন্ন হতে পারে।এই Medieval India-Sultanate-Khalji-Tughlaq-dynasty পোষ্টে আমরা শুরু করব ভারতের ইতিহাসের মধ্যযুগ থেকে।

                   ভারতীয় উপমহাদেশের সময়পঞ্জী

** সময়পঞ্জীর সবুজ করা অংশটি এই অধ্যায়ে আলোচনা করা হল।

  • প্রাচীন যুগঃ
  • প্রস্তর যুগঃ ———-৭০০০০ – ৩৩০০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • মেহেরগড়ঃ ———-৭০০০ – ৩৩০০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • সিন্ধু সভ্যতাঃ ———৩৩০০ – ১৭০০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • বৈদিক যুগঃ ———-১৫০০ – ৫০০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • লৌহ যুগঃ ———–১২০০ – ৩৩০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধঃ ——-১০০০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • ষোড়শ মহাজনপদঃ ——৭০০ – ৩০০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • হজরত মহম্মদের জন্মঃ —-৫৭০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • গৌতম বুদ্ধের জন্মঃ—— ৫৬৩ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • মহাবীরের জন্মঃ ——–৫৪০ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমনঃ —–৩২৬  খ্রীষ্ট পূর্ব
  • মৌর্য্য সাম্রাজ্যঃ——– ৩২১ -১৮৫ খ্রীষ্ট পূর্ব
  • গুপ্ত সাম্রাজ্যঃ ———৩২০ খ্রীষ্টাব্দ -৪৬৭ খ্রীষ্টাব্দ
  • মহাভারত লিখিত হয়ঃ —৪০০ খ্রীষ্টাব্দে (সময় কাল ১০০০ খ্রী.পূ. -৪০০ খ্রী.)
  • হর্ষ যুগঃ ———–৬০৬ -৬৪৭ খ্রীষ্টাব্দ
  • রামায়ন লিখিত হয়ঃ —১২০০ খ্রীষ্টাব্দে ( সময় কাল ৫০০ খ্রী.পূ. -১২০০ খ্রী.)
  • মধ্যযুগঃ
  • সুলতানি যুগঃ ——-১২০৬ – ১৫২৬ খ্রীষ্টাব্দ
  • মোগল যুগঃ ——–১৫২৬ – ১৭০৭ খ্রীষ্টাব্দ
  • মারাটা সাম্রাজ্যঃ —–১৬৭৪  -১৮১৮ খীষ্টাব্দ
  • শিখ সাম্রাজ্যঃ ——-১৭৯৯ খ্রী. -১৮৪৯ খীষ্টাব্দ
  • ব্রিটিশ ভারতঃ ১৮৫৮ খ্রী. -১৯৪৭ খীষ্টাব্দ

Medieval India-Sultanate-Khalji-Tughlaq-dynasty

ভারতে বৈদেশিক আক্রমনঃ

  • ভারতবর্ষে প্রথম বৈদেশিক আক্রমন শুরু করেন আরবরা, ৭১২ খ্রীষ্টাব্দে মহম্মদ বিন কাশিমের নেতৃত্বে ।
  • ভারতবর্ষে প্রথম মুসলমা্ন আক্রমন শুরু করেন ইরাকের শাসক মহম্মদ বিন কাশিম।
  • ৭১২ খ্রীষ্টাব্দে সিন্ধু দেশের রাজা দাহিরকে পরাস্থ করে মহম্মদ বিন কাশিম সিন্ধু দখল করেন। কিন্তু ভারতে সাম্রাজ্য বিস্তার করেননি।
  • আরবদের সিন্ধু বিজয়ের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল মুসলমান ধর্ম বিস্তার এবং ধন-সম্পদ লুট করা ।
  • ভারতে তুর্কী আক্রমন শুরু করেন গজনীর শাসক সবুক্তগীন । ৯৭৭ খ্রীষ্টাব্দে।
  • Educational Tips: http://edutips.in

সুলতান মামুদঃ

  • সবুক্তগীনের পুত্র সুলতান মামুদ ৯৯৯ খ্রীষ্টাব্দে (মতান্তরে ৯৯৮) গজনীর সিঙ্ঘাসনে বসেন ।
  • সুলতান মামুদ ১০০০ সাল থেকে ১০৩০ সাল পর্যন্ত ১৭ বার ভারত আক্রমন করেন।
  • হিন্দু শাহীরাজ্ জয়পালকে ১০০১ সালে পরাস্থ করেন, অপমানের জ্বালায় জয়পাল অগ্নিকুন্ডে ঝাপ দিয়ে দেহত্যাগ করেন।
  • সুলতান মামুদ কাশ্মীর জয় করতে ব্যর্থ হন।
  • মামুদ ১০২৫ খ্রীষ্টাব্দে গুজরাটের সোমনাথ মন্দির লুট ও ধ্বংস করেন ।
  • মুঘল সম্রাট ঔরঙ্গজেব ১৭০৬ খ্রীষ্টাব্দে সোমনাথ মন্দির লুট ও ধ্বংস করেন । বর্তমান সোমনাথ মন্দিরটি শ্রী সোমনাথ ট্রাস্টের তত্ত্বাবধানে তৈরী এবং রাষ্ট্রপতি শ্রী শঙ্কর দয়াল শর্মা ১লা ডিসেম্বর,১৯৯৫ সালে জাতীর উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করেন ।
  • মামুদের সভায় ছিলেন ঐতিহাসিক উটবী ।
  • আল-বিরুনি ভারতে এসেছিলেন সুলতান মামুদের সাথে। তিনি কিতাব-উল-হিন্দ বা তহকিক-ই-হিন্দ গ্রন্থ রচনা করেন ।
  • সুলতান মামুদ পার্ষিয়ান কবি ফিরদৌসির পৃষ্ঠপোষকতা করেন। ফিরদৌসি শাহনামা রচনা করেন।

ভারতে মুসলিম সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠাঃ

  • সুলতান মামুদের পর ভারতে দ্বিতীয়বার তুর্কী আক্রমন শুরু করেন – মহম্মদ ঘুরী ।
  • ভারতে প্রথম মুসলমান সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন—মহম্মদ ঘুরি ।
  • তরাইনের প্রথম যুদ্ধ -১১৯১ সাল। মহম্মদ ঘুরি ও পৃথ্বিরাজ চৌহান। ঘুরি পরাজিত হন।
  • তরাইনের দ্বিতীয় যুদ্ধ -১১৯২ সাল। মহম্মদ ঘুরি ও পৃথ্বিরাজ চৌহান। ঘুরী জয়লাভ করেন ।

সুলতানী যুগ (দাস বংশ)- কুতুবুদ্দিন-ইলতুৎমিস-বলবন

কুতুবুদ্দিন আইবকঃ

  • ভারতে দাস বংশের প্রতিষ্ঠা করেন– কুতুবউদ্দিন আইবক 1206 খ্রিস্টাব্দে ।
  • কুতুবুদ্দিনের সময় থেকেই ভারতে সুলতানী যুগের শুরু।
  • কুতুবউদ্দিন আইবক ছিলেন মহম্মদ ঘুরি্র বিশ্বস্ত সেনাপতি ।
  • তার রাজধানী ছিল– লাহোর ।
  • কুতুবউদ্দিন আইবক মালিক উপাধি ধারণ করেন,এবং লাখ বক্স নামে পরিচিত ছিলেন। তাকে সুলতানি সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার রূপকার বলা হয়।
  • তিনি কুতুবমিনার নির্মাণ কাজ শুরু করেছিলেন। ভারতের ২৭ টি হিন্দু এবং জৈন মন্দির ধ্বংস করে তার ধ্বংসাবশেষ দিয়ে ভারতে প্রথম মসজিদ নির্মান করেন। নাম দেন কায়াত-উল-ইসলাম।
  • ১২১০ খ্রিস্টাব্দ পোলো খেলার সময় ঘোড়ার পিঠ থেকে পড়ে কুতুব মারা যায়।
  • কুতুবুদ্দিন আইবকের মৃত্যুর পর আরাম শাহ ক্ষনিকের জন্য সিঙ্ঘাসনে বসেন।

ইলতুৎমিসঃ

  • এরপর কুতুবুদ্দিন আইবকের জামাতা ইলতুৎমিস ১২১১ খ্রিস্টাব্দে লাহোরের সিংহাসনে বসেন।পরবর্তীতে রাজধানী দিল্লীতে স্থানান্তরিত করেন। তখন থেকেই দিল্লী প্রথমবার রাজধানী হিসাবে আত্মপ্রকাশ করল।
  • দাস বংশের শ্রেষ্ট রাজা ছিলেন ইলতুৎমিস। তিনিই ভারতে তুর্কী সাম্রাজ্য দৃঢ় প্রতিষ্ঠিত করেন । তিনিই ছিলেন সুলতানী সাম্রাজ্যের প্রকৃত প্রতিষ্ঠাতা ।
  • ১২২১ খ্রিস্টাব্দে চেঙ্গিস খান এর ভারত আক্রমণ বুদ্ধির সাথে আটকে দেন।
  • চল্লিশ চক্র গঠন করেন।
  • রুপোর মুদ্রা টঙ্কা এবং তামার মুদ্রা জিতল চালু করেন।
  • ইকতা প্রথা চালু করেন।
  • কুতুব মিনারের কাজ সম্পন্ন করেন ইলতুতমিস।

রাজিয়াঃ

  • ইলতুৎমিস এর  ১২৩৬ খ্রিস্টাব্দে একমাত্র মহিলা হিসেবে রাজিয়া দিল্লির সিংহাসনে বসেন।
  • মধ্যযুগে ভারতের প্রথম এবং শেষ মুসলমান মহিলা শাসক ছিলেন রাজিয়া

বলবনঃ

  • প্রায় কুড়ি বছর পরে ১২৬৬ খ্রিস্টাব্দে উলুক খাঁ গিয়াসউদ্দিন বলবন নাম নিয়ে দিল্লির সিংহাসনে বসেন।
  • বলবন তার রাজসভায় সিজদা (দন্ডবত) ও পাইবস (সিঙ্ঘাসন চুম্বন) চালু করেন।
  • দাস বংশের শেষ রাজা ছিলেন কায়ুমার্স

খলজি বংশঃ

  • দিল্লীতে ১২৯০ সালে খলজি বংশের প্রতিষ্ঠা করেন জালালুদ্দিন খলজি

আলাউদ্দিন খলজীঃ

  • জালালুদ্দিনের পর ১২৯৬ সালে সিঙ্ঘাসনে বসেন আলাউদ্দিন খলজি।
  • সিকান্দার-ই-শানী বা দ্বিতীয় আলেকজান্ডার উপাধি নিয়েছিলেন।
  • তিনিই সুলতানী বংশের প্রথম শাসক যিনি দাক্ষিনাত্য অভিযান করেছিলেন। কিন্তু সেখানে সাম্রাজ্য স্থাপন করেননি। বশ্যতা স্বীকার এবং কর নিয়ে ফেরৎ এসেছিলেন।
  • দাক্ষিনাত্য জয়ে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মালিক কাফুর।
  • মালিক কাফুর ছিলেন তার বিশ্বস্ত সেনাপতি।
  • দক্ষিণ ভারতে প্রথম মুসলমান সাম্রাজ্য স্থাপন করতে আলাউদ্দিন সফল হয়েছিলেন।
  • দাগ ও চেহেরা চালু করেছিলেন।
  • প্রথম বেতনভুক পুলিশ নিয়োগ করেন।
  • তার রাজসভায় সুরা মদ্যপান নিষিদ্ধ করেন, তিনিই প্রথম বাজারদর নিয়ন্ত্রন এবং রেশনিং ব্যবস্থা চালু করেন।
  • দিল্লির বিখ্যাত আলাই দারওয়াজা তার সময় কালে হয়েছিল।
  • আলাউদ্দিন খলজি সময় কালে তার সভা অলংকৃত করতেন বিখ্যাত কবি আমির খসরু

তুঘলক বংশঃ

  • ১৩২০ সালে তুঘলক বংশের সূচনা করেন গিয়াসুদ্দিন তুঘলক।
  • তিনি তুঘলকাবাদ শহরের পত্তন করেন।

মহম্মদ বিন তুঘলকঃ

  • গিয়াসুদ্দিন তুঘলকের পর তার পুত্র মহম্মদ বিন তুঘলক সিঙ্ঘাসনে বসেন।
  • তার আসল নাম জুনা খাঁ ।
  • মহম্মদ বিন তুঘলক কে আমরা পাগলা রাজা বলে থাকি।
  • বিশেষ কারণ ছাড়াই রাজধানী দিল্লী থেকে দেওগীরি (পরে নাম পরিবর্তন করে দৌলতাবাদ নাম দেন) স্থানান্তর করেন ১৩২৬ সালে।
  • আবার রাজধানী দিল্লীতে ফিরিয়ে আনেন ১৩৩৫ সালে।
  • দাক্ষিনাত্য অভিযান করেন এবং সাম্রাজ্যভুক্ত করেন।
  • কাঁসার টাকা প্রচলন করেন।

ফিরোজ তুঘলকঃ

  • মহম্মদ বিন তুঘলক এর পরে ফিরোজ তুঘলক দিল্লির সিংহাসনে বসেন। তাকে আমরা সুলতানি যুগের আকবর বলি।
  • ফিরোজ তুঘলক যিনি মৃত্যুদণ্ড আটকানো, ইকতা ব্যবস্থা বন্ধ করা, দাগ ও চেহেরা ব্যবস্থা বন্ধ করেছিলেন।
  • দিল্লি সুলতানি যুগে দেওয়াল চিত্র লেখা, জলের উপরে ট্যাক্স বসানো, কর্মী নিয়োগ দপ্তর, জিজিয়া কর প্রথম ব্রাহ্মণদের পরে চালু করা হয়। (এই জিজিয়া কর পরে বন্ধ হয়ে গেলেও ঔরঙ্গজেব সেটা আবার চালু করে।) এরকম অনেক কাজ ফিরোজ তুঘলক করেছিলেন।
  • তৈমূর লং দিল্লী আক্রমন করেন ১৩৯৮ সালে।
  • তৈমূর লংয়ের সময় দিল্লীর শাসক ছিলেন নাসিরুদ্দিন মামুদ শাহ।
  • দিল্লী সুলতানী সাম্রাজ্যে সৈয়দ বংশের সূচনা করেন খিজির খাঁ।
  • দিল্লী সুলতানী সাম্রাজ্যে লোদী বংশের সূচনা করেন বহলুল লোদী।

সংক্ষিপ্ত টিকাঃ

  • সোমনাথ মন্দির:
    • অবস্থানঃ- গুজরাটের কাথিয়াবাড় অঞ্চল।
    • বিশেষত্বঃ- ভগবান শিবের দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গের অন্যতম।
    • সোমনাথ কথার অর্থ “The protector of Moon God”
    • ঋকবেদে এই দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গের উল্লেখ আছে। মন্দিরটি মোট ৬ বার ধ্বংসপ্রাপ্ত হয় এবং প্রতিবারই পুননির্মিত হয়। মন্দিরটি প্রথমবার নির্মত হয় খ্রীষ্ট জন্মেরও আগে।
    • ৭২৫ খ্রীস্টাব্দে সিন্ধ প্রদেশে নিযুক্ত আরব গভর্নরের নির্দেশে আরব দস্যুরা মন্দিরটি ধ্বংস করে।
    • প্রতিহার রাজা দ্বিতীয় নাগভট্ট ৮১৫ খ্রীস্টাব্দে লাল বেলেপাথর দিয়ে তৃতীয়বার মন্দিরটি নির্মান করেন।
    • গজনীর সুলতান মামুদ ১০২৫ খ্রীষ্টাব্দে গুজরাটের সোমনাথ মন্দির লুট ও ধ্বংস করেন । মুল্যবান সব পাথর এবং সোনাদানা অলংকার লুঠ করেন। মন্দিরের পুজারী এবং ভক্তদের নির্মম ভাবে হত্যা করেন। শেষে মন্দিরটি জ্বালিয়ে দেন। শিবলিঙ্গটি পুরোপুরি ভাবে ধ্বংস করে দেন। সেই মুল্যবান পাথরদিয়ে মামুদ গজনীতে জামিয়া মসজিদ তৈরী করেন।
    • চতুর্থবার ১০২৬ থেকে ১০৪২ এর মধ্যে মন্দিরটি পুননির্মিত করেন মালবের পারমার রাজা ভোজ এবং গুজরাটের সোলাঙ্কি রাজা ভীম।
    • ১২৯৭ সালে দিল্লীর সুলতানী শাসকরা গুজরাট আক্রমণ করার সময় মন্দিরটি আবার ধবংস করেন।
    • মুঘল সম্রাট ঔরঙ্গজেব ১৭০৬ খ্রীষ্টাব্দে সোমনাথ মন্দির লুট ও ধ্বংস করেন । বর্তমান সোমনাথ মন্দিরটি শ্রী সোমনাথ ট্রাস্টের তত্ত্বাবধানে তৈরী এবং রাষ্ট্রপতি শ্রী শঙ্কর দয়াল শর্মা ১লা ডিসেম্বর,১৯৯৫ সালে জাতীর উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করেন ।
  • কুতুবমিনার:
    • অবস্থানঃ দিল্লী
    • উচ্চতাঃ ৭২.৫ মিটার, বা ২৩৯ ফুট।
    • বিশেষত্বঃ বিশ্বের উচ্চতম ইটের তৈরী মিনার।
    • ১১৯৩ খ্রীস্টাব্দে এর নির্মাণ কাজ শুরু করেন কুতুবউদ্দিন আইবক। কিন্তু শুধুমাত্র ভিত্তি স্থাপন করেন।
    • ১৩৬৮ সাল নাগাদ ইলতুৎমিস এই মিনারের আরো তিনটি ধাপ সম্পূর্ণ করেন।
    • পরবর্তীতে ফিরোজ শাহ তুঘলক এই মিনারের পঞ্চম এবং শেষ ধাপটি সম্পূর্ণ করেন।

আরো পড়ুনঃ গুপ্ত সাম্রাজ্য-হর্ষংক-পাল-প্রতিহার-রাষ্ট্রকূট-চোল-চালুক্য

1 thought on “Medieval India-Sultanate-Khalji-Tughlaq-dynasty

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *